এ বছর বাংলাদেশ বিমানে যারা হজ করতে যাবেন তারা কী কী মালপত্র এবং কী পরিমাণ নিতে পাবেন তা নির্দিষ্ট করে দিয়েছে বিমান কর্তৃপক্ষ। একজন হজযাত্রী ৪৬ কেজি মালামাল নিতে পারবেন।

আগামী ৪ জুলাই (বৃহস্পতিবার) সকালে হজযাত্রীদের নিয়ে প্রথম ফ্লাইট জেদ্দার উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবে। সকাল সোয়া সাতটায় বিজি-৩০০১ ফ্লাইটটি ৪১৯ জন যাত্রী নিয়ে ঢাকা ছাড়বে।

চলতি বছর বাংলাদেশ থেকে এক লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজযাত্রী পবিত্র হজ পালনের জন্য সৌদি আরব যাবেন। তাঁদের মধ্যে বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইটে যাবেন ৬৩ হাজার ৫৯৯ জন।

বিমানের উপমহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) তাহেরা খন্দকার জানান মঙ্গলবার (২৫ জুন) সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, একজন হজযাত্রী বিনা খরচে সর্বোচ্চ ২টি ব্যাগেজে নিতে পারবে। যার এক একটি ২৩ কেজির বেশি হবে না। এছাড়া প্রত্যেকে পাঁচ লিটার জমজমের পানি দেশে আনতে পারবেন। তবে বিমানে সঙ্গে করে এই পানি আনতে পারবেন না।

ধারালো কোনো বস্তু, যেমন—ছুরি, কাঁচি, নেইল কাটার, ধাতব নির্মিত দাঁত খিলন, কান পরিস্কারক, কোনো খাদ্য দ্রব্য, তাবিজ ও গ্যাস জাতীয় বস্তু যেমন অ্যারোসল এবং ১০০ (এম এল)-এর বেশি তরল পদার্থ ব্যাগেজে নেয়া যাবে না।

এ ছাড়া ব্যাগেজ স্যুটকেস বা ট্রলিব্যাগ হতে হবে। গোলাকৃত বা দড়িবাঁধা ব্যাগ বা অনুরুপ কোনো ব্যাগ নেয়া যাবে না।

এদিকে, এ বছর ফ্লাইটের সময় পরিবর্তন করলে হজযাত্রীদের কাছ থেকে জরিমানা আদায় করবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস। টিকিট কেনার পর ফ্লাইটের ২৪ ঘণ্টা আগে সময় পরিবর্তন করলে ২০০ মার্কিন ডলার এবং যাত্রার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পরিবর্তন করলে ৩০০ মার্কিন ডলার জরিমানা আদায় করা হবে। এ ছাড়া নির্ধারিত ফ্লাইটে না গেলে টিকিটের টাকাও ফেরত দেবে না বিমান।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here