মেয়ে হোমওয়ার্কে ফাঁকি দিচ্ছে কিনা, দেখার জন্য বাড়ির পোষা কুকুরকে প্রশিক্ষণ দিয়েছেন দক্ষিণ-পশ্চিম চিনের গুইঝোউ প্রদেশের বাসিন্দা জু লিয়াং নামের এক ব্যক্তি।

লিয়াং জানিয়েছেন, প্রথমে তিনি বাড়ির পোষা কুকুর ফান্টুয়ানকে প্রশিক্ষণ দিয়েছিলেন যাতে খাবার দাবারে বি়ড়ালরা মুখ না দেয়। সে কাজ ফান্টুয়ান দায়িত্বের সঙ্গে পালন করত। এরপর একদিন তিনি লক্ষ্য করলেন, হোমওয়ার্কের সময় তাঁর মেয়ে জিনিয়া বড্ড দুষ্টুমি করছে। তখন লিয়াং ভাবলেন যদি ফান্টুয়ানকে দায়িত্ব দেওয়া হয় মেয়ের হোমওয়ার্কের দিকে নজর রাখার জন্য। যেমন ভাবা তেমন কাজ, ফান্টুয়ানকে প্রশিক্ষণ দিতে শুরু করলেন মেয়ের হোমওয়ার্কের ওপর নজর রাখার জন্য। পড়াশোনার সময় মেয়ে যাতে কোনও ভাবেই মোবাইলে ব্যস্ত না হয়ে পড়ে। কাজও দিল লিয়াংয়ের এই পরিকল্পনা।

জিনিয়াএখন হোমওয়ার্ক করতে বসলে, পোষ্য ফান্টুয়ান তার পড়ার টেবিলে দু’ পা তুলে তীক্ষ্ণ দৃষ্টিতে নজর রাখে। কোনও ভাবেই জিনিয়াকে মোবাইলে হাত দিতে দেয় না।

আর জিনিয়া বলছে, ফান্টুায়ানের এই ভূমিকায় তার মোটেই অসুবিধা হয় না। বরং হোমওয়ার্কের একঘেয়েমি থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। ফান্টুয়ান সামনে থাকলে তার মনে হয় একজন সঙ্গী রয়েছে, যেমন কোনও সহপাঠী সঙ্গে থাকলে মনে হয় তেমনই।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here