শেষ পরীক্ষায় পাস, কাল অনুশীলন শুরু তামিম-মুশফিকদের

গত বুধবার নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে পা রাখে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। সেখানে গিয়ে প্রথম ৪৮ ঘণ্টা কাটে একেবারেই রুমবন্দি। এরপর সেলফ কোয়ারেন্টিনে কেটেছে ক্রিকেটারদের।

এর মধ্যে পরপর তিনবার কোভিড-১৯ পরীক্ষা করা হয় ক্রিকেটারদের। আশার খবর, প্রথম দুই পরীক্ষার পর তৃতীয় ও শেষ পরীক্ষায়ও করোনা নেগেটিভ আসে বাংলাদেশ দলের সব খেলোয়াড়ের। আজ থেকে গ্রুপভিত্তিক জিম সেশন শুরু করেছেন ক্রিকেটাররা। কাল থেকে শুরু হবে অনুশীলন।

নিউজিল্যান্ডের লিংকন গ্রিনে কাল থেকে সাত জনের ছোট ছোট গ্রুপ হয়ে অনুশীলন করবেন তামিম-মুশফিকরা। বিসিবির মিডিয়া বিভাগ খবরটি নিশ্চিত করেছে। ১৪ দিন পার হলে স্বাধীনভাবে দলীয় অনুশীলন শুরু হবে।

তবে প্রথম সাতদিন পর সতীর্থদের সঙ্গে জিম করতে পেরে স্বস্তি ফিরেছে বাংলাদেশ শিবিরে। বিসিবির পাঠানো ভিডিও বার্তায় সেই স্বস্তির কথাই জানিয়েছেন মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিঠুন। তিনি বলেন, ‘এতদিন আমাদের চলাফেরায় বাধা ছিল। এখন বিষয়গুলো স্বাভাবিক হচ্ছে। আজ আমরা জিম করার সুযোগ পেয়েছি। প্রায় এক সপ্তাহ পর জিম ব্যবহার করে ভালো লাগছে।’

মিঠুন আরও বলেন, ‘অনেক বেশি আনন্দিত আমি। কারণ ঘরের মধ্যে থাকা খুব কষ্টকর ছিল। এখানে কিছু করার নেই। এ ছাড়া আমরা একটা টুর্নামেন্ট খেলতে এসেছি। কাল থেকে আমরা মাঠে যেতে পারব। এই ব্যাপারটা ভাবতে ভালো লাগছে। কাল থেকে যখন অনুশীলনে ফিরব, আমরা সবকিছু মানিয়ে নিতে পারব। ১৪ দিন পর আমাদের স্বাভাবিক চলাফেরা শুরু হবে। অবশ্য এটা পজিটিভ দিক। সবাই জিনিসটা উপভোগ করবে। কারণ প্রায় এক বছর ধরে আমরা এই কোভিডের মধ্যে আছি।’

নিউজিল্যান্ড সফরে তিনটি করে টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। আগামী ২০ মার্চ থেকে শুরু হয়ে যা চলবে ১ এপ্রিল পর্যন্ত। এই ছোট সূচির জন্য বাংলাদেশকে থাকতে হচ্ছে প্রায় দেড় মাসের মতো। করোনাভাইরাসের কারণে এই কঠিন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। ক্রাইস্টচার্চে বাংলাদেশ দলের বর্তমান ঠিকানা ‘শ্যাডো বাই পার্ক হোটেল’।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here