শীতকালে একের পর এক শোয়েটার পরলেই যে শীত হার মানবে, তা কিন্তু একেবারেই নয়। বরং ভিতর থেকে যদি শরীরকে গরম রাখা যায়, তাহলে শীতকে জমিয়ে উপভোগ করা যায়। তা কীভাবে সহজেই শীতে পাবেন উষ্ণতার ছোঁয়া জেনে নিন…

♦ আদা শরীরে কলেস্টেরলের মাত্রা কমায়। তাই শীতে শরীর সুস্থ রাখার উপযুক্ত উপায় এটি। পাশাপাশি অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান থাকায় সর্দি-কাশির নিরাময়েও সহায়ক। স্যুপ বা অন্যান্য খাবারের সঙ্গে মিশিয়ে আদা খেতে পারেন।

♦ সর্দি, কাশি, ফ্লু ইত্যাদির বিরুদ্ধে লড়তে অনন্য উপাদান মধু। মিষ্টিজাতীয় খাবার হলেও মধুতে নেই বাড়তি ক্যালরির ঝামেলা। শরীর গরম রাখতেও বেশ উপকারী।

♦ বিভিন্ন জাতের বাদাম যেমন- চিনাবাদাম, আখরোট, কাঠবাদাম ইত্যাদি ভালো কলেস্টেরল, ভিটামিন, ফাইবার ও ওমেগা-থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিডের সবচেয়ে ভালো উৎস। গরমজাতীয় খাবার বলে শীতে স্ন্যাকস হিসেবে খেতে পারেন।

♦ শরীরের তাপমাত্রা কমে যাওয়া থেকে রক্ষা করতে এই মসলা বেশ উপকারী। আলাদা স্বাদ আনতে স্যুপ, রান্না করা খাবার, স্যালাডের সঙ্গে দারুচিনি মিশিয়ে নিতে পারেন।

♦ সর্দি, কাশি ও গলা ব্যথা এবং শরীরে কলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে রাখে। প্রতিদিন তিন, চার কোয়া রসুন রান্নায় ব্যবহার করে খেতে পারেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here