পিএইচডি বা পোস্ট ডক্টরেট করতে কানাডার ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পাবেন বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা। বাংলাদেশ থেকে প্রায় ৪০ জন শিক্ষার্থী এ সুযোগ পাবেন। সোমবার কানাডায় ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে বঙ্গমাতা ন্যাশনাল সেলুলার অ্যান্ড মলিকুলার রিসার্স সেন্টারের মধ্যে এ বিষয়ে এক সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে।

ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্ট এবং ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর সুজানে ফোরটিয়ার এবং বিএনসিআরসি-এর প্রকল্প পরিচালক ডা. মাহমুদ- উজ- জাহান সমঝোতা স্মারকটি স্বাক্ষর করেন। ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যাথলজি বিভাগের ভিজিটিং প্রফেসর ড. আবু সাদাত মোহাম্মাদ নোমান সমঝোতা স্বাক্ষরে বিশেষ সহযোগিতা করেন।

বাংলাদেশ সরকার এবং ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ আর্থিক সহায়তায় শিক্ষা গ্রহণ শেষে এসব শিক্ষার্থীরা ফিরে এসে বঙ্গমাতা ন্যাশনাল সেলুলার অ্যান্ড মলিকুলার রিসার্স সেন্টারে (বিএনসিআরসি) গবেষণা কাজে নিয়োজিত হবেন।

বিএনসিআরসির প্রকল্প পরিচালক ডা. মাহমুদ- উজ- জাহান তার বক্তব্যে, উচ্চ শিক্ষিত দক্ষ জনবলের প্রয়োজনীয়তার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন। দক্ষ লোকবল তৈরিতে সহযোগিতার জন্য ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়কে ধন্যবাদ জানান তিনি।

ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্ট ও ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর সুজানে ফোরটিয়ার তার বক্তব্যে তার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার উচ্চমান এবং এর ঐতিহ্য বর্ণনা করে প্রতিষ্ঠানের জ্ঞান ও গবেষণার ক্ষেত্র ও মান বৃদ্ধির অঙ্গীকার করেন। তার বিশ্ববিদ্যালয়ের এই প্রচেষ্টারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের সঙ্গে ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের প্রতিফলন হিসেবে তিনি তুলে ধরেন এবং এই উদ্যোগের সফলতা কামনা করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here