মৃত্যুর পর রিপোর্ট এলো সাবেক এমপি পুতুলের করোনা পজেটিভ

মৃত্যুর পর জানা গেল বগুড়ার সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক মহিলা বিষয়ক সম্পাদক কামরুন্নাহার পুতুল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ১১টার দিকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

বগুড়ায় করোনা আক্রান্ত হয়ে কামরুন্নাহার পুতুলই প্রথম মারা গেলেন। সাবেক এই এমপি বগুড়ার প্রয়াত সাংসদ মোস্তাফিজার রহমান পটলের স্ত্রী। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর। তিনি এক ছেলে ও দুই মেয়ের জননী ছিলেন।

বগুড়া সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সামির হোসেন মিশু বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘কামরুন্নাহার পুতুল কয়েকদিন আগে তার অসুস্থ ছেলেকে দেখতে ঢাকায় গিয়েছিলেন। সেখান থেকে ফেরার পর থেকে তিনি অসুস্থবোধ করেন। তিনি কয়েকদিন ধরে জ্বর, কাশি, পাতলা পায়খানা এবং খাবারে অরুচিজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন। বৃহস্পতিবার রাতে অবস্থার অবনতি হলে তাকে শজিমেক হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানেই মারা যান তিনি।’

ডা. সামির হোসেন মিশু আরও বলেন, ‘তার শারীরিক সমস্যাগুলো করোনা উপসর্গের সঙ্গে মিলে যাওয়ায় তিনদিন আগে তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। বৃহস্পতিবার রাতে মৃত্যুর পর পর্যন্ত তার রিপোর্ট না পাওয়া গেলেও শুক্রবার সকালে তার রিপোর্ট হাতে পাওয়া যায়। সেখানে তিনি করোনায় আক্রান্ত বলে উল্লেখ রয়েছে। এ কারণে করোনায় মৃত ব্যক্তির দাফনের বিধান মেনে তার জানাজা এবং দাফন সম্পন্ন করা হয়।’

প্রসঙ্গত, ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর কামরুন্নাহার পুতুল তৎকালীন বগুড়া-জয়পুরহাট জেলার সংরক্ষিত নারী আসনে এমপি মনোনীত হন। তার স্বামী মোস্তাফিজার রহমান পটল ১৯৭৩ সালে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে বগুড়ার গাবতলী আসনের এমপি নির্বাচিত হন। কামরুন্নাহার পুতুল রাজনীতিতে যোগদানের আগে রূপালী ব্যাংকে কর্মরত ছিলেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here