মানিকগঞ্জে প্রশিক্ষণার্থীদের থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের অভিযোগ

মানিকগঞ্জের হরিরামপুরে মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তরের আওতায় প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে প্রশিক্ষণার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। উপজেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা ও দুই প্রশিক্ষকের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ প্রশিক্ষণার্থীদের। তবে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার নির্দেশে টাকা নেয়া হচ্ছে বলে দাবি করেছেন ওই দুই প্রশিক্ষক।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের অধিনে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের মাধ্যমে তিন মাস মেয়াদী “উপজেলা পর্যায়ে মহিলাদের জন্য আয়বর্ধক (আইজিএ) প্রশিক্ষণ” দেওয়া হয়। চলতি অক্টোবর মাসের ০১ তারিখ থেকে উপজেলায় দর্জি বিজ্ঞান ও বিউটিফিকেশিয়ান কোর্সে ২৫ জন করে মোট ৫০ জনকে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে।
কয়েকজন প্রশিক্ষণার্থী অভিযোগ করে বলেন, তাদের কাছ থেকে প্রশিক্ষণের প্রয়োজনীয় উপকরণ কেনার কথা বলে ৪০০ টাকা করে নেয়া হলেও তাদের কোন উপকরণ দেয়া হচ্ছে না। প্রয়োজনীয় সকল উপকরণ তাদের নিজেদেরই নিয়ে আসতে হয়।

বিউটিফিকেশিয়ান কোর্সের প্রশিক্ষক দোলনচাঁপা বলেন, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার নির্দেশে প্রশিক্ষণে প্রয়োজনীয় উপকরণ কেনার জন্য ৪০০ টাকা টাকা নেয়া হচ্ছে। আমি এ পর্যন্ত ১৩ জনের কাছ থেকে ৪০০ টাকা করে নিয়েছি। প্রয়োজনীয় উপকরণ কেনার পর বেঁচে যাওয়া টাকা উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তাকে দিতে হবে।

দর্জিবিজ্ঞান কোর্সের প্রশিক্ষক কামরুন্নাহার বলেন, প্রশিক্ষণার্থীদের প্রশিক্ষণ শেষে সনদপত্র দেয়া হয়, অ্যাকাউন্ট খুলতে হয়; আরও অনেক খরচ আছে। সেজন্য টাকা নিতে হয়। আমি এ পর্যন্ত ১০ জনের কাছ থেকে ৪০০ টাকা করে নিয়েছি। এ টাকা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার নির্দেশ অনুযায়ী নিচ্ছি।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মালা বড়াল মুঠোফোনে জানান, আমি এ সপ্তাহে ট্রেনিং এ আছি। ৪০০ টাকা নেয়ার কথা বলা হয়নি। যদি ৪০০ টাকা নিয়ে থাকে তাহলে ওই ২ প্রশিক্ষক বেশি টাকা নিয়েছেন। তবে ভর্তি ফি বাবদ ১০০ টাকা নেয়ার কথা বলা হয়েছে বলে তিনি স্বীকার করেছেন। ভর্তি ফি বাবদ নেয়া টাকা বাদে বাকী টাকা ফেরত দেয়া হবে বলেও তিনি জানান। ১০০ টাকা নেয়ারও নিয়ম নেই বলেও তিনি স্বীকার করেছেন।

মহিলা অধিদপ্তরের মানিকগঞ্জ জেলা উপ-পরিচালক নাসরিন সুলতানা মুঠোফোনে বলেন, `এ ধরণের কোর্সে কোন ধরনের টাকা নেয়ার নিয়ম নেই। আমি খোঁজ নিচ্ছি`।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here