চীনের প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলছে। তবে বিশ্বের দুই তৃতীয়াংশ মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারে বলে জানিয়েছেন হংকং বিশ্ববিদ্যালয়ের পাবলিক হেলথ মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক গ্যাব্রিয়েল লিওং। তিনি বলেন, ‘নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বাড়তেই থাকবে।’

চীন সফর না করেও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনাটিকে ‘টিপ অফ দ্য আইসবার্গ’ বলে মন্তব্য করছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান টেড্রোস অ্যাধনম। গত সোমবার তার এই মন্তব্যের পর শঙ্কার কথা জানিয়ে সতর্কতামূলক এই মন্তব্য করেন গ্যাব্রিয়েল লিওং।

তিনি বলেন, ‘এই আইসবার্গের আকার এবং আকৃতি নিরূপণ করাই অনেক বড় বিষয়।’

দ্য গার্ডিয়ান সংবাদমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মহামারীবিষয়ক বিশেষজ্ঞ লিওং বলেন, ‘বিশ্বের দুই তৃতীয়াংশ মানুষ বলতে মোট জনসংখ্যা ৬০ শতাংশ বোঝানো হচ্ছে। এটি অবশ্যই একটি ভয়াবহ সংখ্যা।’

তিনি আরও বলেন, ‘করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যদি মাত্র এক শতাংশও মৃত্যু হার নিরূপণ হয়, তবু প্রাণহানির হার হবে ভয়াবহ। ’

হংকংয়ের এই অধ্যাপক জানিয়েছেন, তিনি ডব্লিউএইচও’র বিশেষজ্ঞদের বৈঠকে বসবেন। যেখানে করোনাভাইরাসের মতো মহামারীর বিস্তার ও প্রতিরোধের ব্যাপারে চীনের নেওয়া পদক্ষেপ ফলপ্রসূ হচ্ছে কি না, সে ব্যাপারে আলোচনা করবেন।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে চীনে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ১ হাজার ১০৭ জন। আক্রান্ত হয়েছেন ৪৪ হাজার ১৩৮ জন। তবে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা আগের থেকে কিছুটা কমেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here