বিপন্ন ভাষাগুলোও সংরক্ষণ করতে হবে

প্রতিবছর একুশে ফেব্রুয়ারি ভাষা শহীদদের স্মরণে শ্রদ্ধার সাথে আমাদের মাতৃভাষা বাংলাকে আমাদের ভালবাসা দিয়ে প্রকাশ করি। ১৯৫২ সাল থেকে ২০২১ সাল দীর্ঘ ৬৯ বছর ধরে আমরা প্রাণ ভরে একুশে ফেব্রুয়ারি দিনটিকে শ্রদ্ধা করে আসছি। মাতৃভাষার প্রতি প্রত্যেক ব্যক্তির একটি টান থাকে কিন্তু কালের বিবর্তনে যদি যথাযথ ব্যবহার করা না হয় তাহলে সেটি হারিয়ে যায়।

বাংলাভাষা আমাদের মাতৃভাষা বলে আমারা দৈনন্দিন ব্যবহার করি কিন্তু আমাদের মনে রাখতে হবে আমাদের দেশে বাংলা ভাষা ছাড়াও আরো ১৪টি ভাষা রয়েছে যেগুলো আজ বিপন্নের পথে। এসব ভাষা নৃগোষ্ঠীদের ভাষা যেমন কন্দ, খাড়িয়া, কোডা, সৌরা, মুন্ডারি, কোল, মালতা, খুমি, পাংখোয়া, রেংমিতচা, চাক, খিয়াং, লুসাই ও লালেং। এগুলো আজ বিলুপ্তির পথে কারণ এগুলোর ব্যবহারকারীর সংখ্যা দিনে দিনে হ্রাস পাচ্ছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, যদি কোনো ভাষার লোকের সংখ্যা কমে যায় তাহলে সেই ভাষাটি আস্তে আস্তে বিলুপ্ত হতে থাকে। দুঃখের বিষয় হলেও সত্যি, আমারা যে ভাষায় কথা বলছি সেটার ব্যবহারও দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে।

ইউনেস্কোর মতে, একটি ভাষা তখনই হারিয়ে যায় যখন সেই ভাষার কথা বলার লোক হারিয়ে যায় কিংবা তারা অন্য ভাষায় কথা বলতে শুরু করে। সত্যি বলতে গেলে বর্তমানে আমাদের দেশে বাংলা ভাষার চেয়ে ইংরেজি ভাষার প্রাধান্য বেশি দেয়া হয়। তবে এটাও সত্যি যে বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হলে ইংরেজি ভাষারও দরকার আছে। তাই বলে শুধু ইংরেজি ভাষার দিকে ধাবিত হয়ে বাংলা ভাষা যেন বিলুপ্ত হয়ে না যায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। বাংলা বা ইংরেজি কোনোটি বাদ দিয়ে নয় বরং দুইটা একসাথে নিয়ে আমাদের আগাতে হবে পাশাপাশি আমাদের নৃগোষ্ঠী সম্প্রদায়ের নিজস্ব ভাষাও যেন বিপন্ন হয়ে না যায় তার জন্য উদ্যোগ নিতে হবে।

লেখকঃ হাফিজুর রহমান

শিক্ষার্থী, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here