বিদ্যুৎ সেবায় ৮৮ ভাগ গ্রাহক সন্তুষ্ট: আইআইএফসির জরিপ

দেশে বিদ্যুৎ সেবায় ৮৮ ভাগ গ্রাহক সন্তুষ্ট বলে দাবি করেছে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান ইনফ্রাস্ট্রাকচার ইনভেস্টমেন্ট ফ্যাসিলিয়েশন কোম্পানি (আইআইএফসি)। ১ হাজার ৪০০ বিদ্যুৎ গ্রাহকের ওপর একটি জরিপ চালিয়ে প্রতিষ্ঠানটি এ দাবি করেছে।

শনিবার অনলাইন জরিপের খসড়া প্রতিবেদন উপস্থাপন অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানানো হয়। জরিপে দেখা যায়- বিদ্যুৎ–সংযোগের ক্ষেত্রে ৯৪ শতাংশ, অভিযোগের বিপরীতে সেবা পাওয়ায় ৭৭ শতাংশ, বিলিংয়ে ৯৫ শতাংশ ও মিটারিং সেবায় ৮৮ শতাংশ গ্রাহক সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। সব মিলিয়ে বিদ্যুৎ সেবায় সন্তুষ্টির কথা জানিয়েছেন ৮৮ ভাগ গ্রাহক।

প্রতিবেদন উপস্থাপন অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে সভাপতির বক্তব্যে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, শতভাগ গ্রাহক সন্তুষ্টি অর্জন করতে হবে। গ্রাহকদের কাছ থেকে কোনো অভিযোগ পেতে চাই না। গ্রাহকদের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়ালে অনেক সমস্যা এমনিতেই সমাধান হবে। বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানিগুলোর গ্রাহকদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতে হবে।

গ্রাহকদের সমস্যা ও অভিযোগ যথাযথভাবে সম্মানের সঙ্গে মূল্যায়ন করতে বিতরণ কোম্পানিগুলোকে নির্দেশ প্রদান করে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রতিটি সংস্থার নিজস্ব মূল্যায়ন থাকা আবশ্যক। সেবা যত দ্রুত অনলাইন বা ডিজিটালাইজড করা যাবে, গ্রাহক সেবার মান তত দ্রুত বাড়বে।

বিদ্যুৎ–সংযোগ, অভিযোগ সেবা, বিলিং ও মিটারিং— এই চারটি বিষয়ের ওপর ‘গ্রাহক সন্তুষ্টি জরিপে’ নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ৭০০ গ্রাহক ও কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার ৭০০ গ্রাহক বেছে নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে আবাসিক গ্রাহক ৭১ শতাংশ এবং বাণিজ্যিক ও অন্যান্য গ্রাহক ২৯ শতাংশ। ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের (ডিপিডিসি) ৩৯ শতাংশ, বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের (আরইবি) ৩৯ শতাংশ ও বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) ২২ শতাংশ গ্রাহক এই জরিপে অংশ নেন।

জরিপের খসড়া প্রতিবেদন বলছে, ৫২ শতাংশ গ্রাহক বিদ্যুৎ–সংযোগের জন্য সরাসরি বিদ্যুৎ অফিসে না গিয়ে কোনো না কোনো মধ্যস্বত্বভোগীর মাধ্যমে আবেদন করেন।

এ প্রসঙ্গে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, কেন ৫২ শতাংশ গ্রাহক বিদ্যুৎ–সংযোগের জন্য মধ্যস্বত্বভোগীর মাধ্যমে আবেদন করেন, তা খুঁজে বের করতে হবে। বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানিগুলোকে সেবা, সেবা পাওয়ার উপায়, সেবার ফি সম্পর্কে গ্রাহকদের জানানোর উদ্যোগ নিতে হবে, সে জন্য জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্ত রেখে ব্যাপক প্রচার করা প্রয়োজন।

ভার্চ্যুয়াল এই অনুষ্ঠানে আরও অংশ নেন বিদ্যুৎ–সচিব মো. হাবিবুর রহমান, পিডিবির চেয়ারম্যান বেলায়েত হোসেন, আরইবির চেয়ারম্যান মঈন উদ্দিন, পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসাইন প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here