“প্রাণের চেতনায় উজ্জীবিত হওয়ার মাস”

হাজার বছরের ইতিহাস ও ঐতিহ্যমন্ডিত বাংলা একটি সমৃদ্ধ ভাষা। পৃথিবী রবে যতদিন, বাংলা ভাষাও রবে ততদিন। ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি। বছর ঘুরে ফেব্রুয়ারি এলেই আমরা পরম শ্রদ্ধায় স্মরণ করি সব ভাষা শহীদদের, সেইসব ভাষা-সংগ্রামীদের যাদের বুকের তাজা রক্তে ৫২’তে রঞ্জিত হয়েছিল ঢাকার পিচঢালা রাজপথ। ‘রাষ্ট্র ভাষা বাংলা চাই’ এ আন্দোলন শুধু ভাষার জন্য আন্দোলন ছিল না, ছিল প্রতিটি বাঙালির অস্তিত্বের আন্দোলন। ফেব্রুয়ারি বাঙালি জাতির কাছে আত্মত্যাগ, শ্রদ্ধা ও অহংকারের মাস। বাঙালি জাতির কাছে বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের কাছে প্রেরণার মাস ফেব্রুয়ারি। মহান এ ভাষার মাসে বাংলা ভাষাকে নিয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক’জন তরুণ শিক্ষার্থীর ভাবনা, ও প্রত্যাশা তুলে ধরেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও এগারজন সমন্বয়ক মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ।

স্বগৌরবে টিকে থাকুক বাংলা ভাষা

বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা করার পেছনে যেহেতু রাজপথের রক্ত-রঞ্জিত ইতিহাস রয়েছে তাই বাংলা ভাষার অপপ্রয়োগ খুবই হৃদয়বিদারক। বর্তমান প্রজন্ম জেনে বা না জেনে প্রতিনিয়ত যা করে চলেছে। পাশাপাশি, ভিনদেশি সংস্কৃতিচর্চার কারণে ধ্বংস হচ্ছে নিজস্ব ভাষাগত ঐতিহ্য। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা হিসাবে ইংরেজিকে অতিমাত্রায় গুরুত্ব দিয়ে যেভাবে বাংলা ভাষাকে সুকৌশলে অবহেলা করা হচ্ছে তা থেকে বেরিয়ে আসাও অতীব জরুরি। ভাষার মাসে বইমেলার আয়োজন করে, বাঙালিয়ানা পোশাক পড়েই আমরা কেবল স্বরণ করি বাংলা ভাষার ইতিহাস। শুদ্ধতার সহিত ভাষা ব্যবহারের চমক দেখাই। অথচ ৩৬৫ দিনই হওয়া উচিত এমন। বাংলা ভাষা আমাদের অস্তিত্ব, আমাদের ধমনিতে বহমান রক্তের মতো চিরন্তন সত্য। মায়ের কাছে শেখা ভাষা মায়ের মতোই পবিত্র। তাই, বাংলা ভাষার অপপ্রয়োগ বা বাংলা ভাষাকেন্দ্রিক অবহেলার যে বেড়াজাল সৃষ্টি হয়েছে তা ভেঙে প্রাণের বাংলা ভাষাকে রক্ষা করার দায়িত্ব আমাদের সকলের। টিকে থাকুক বাংলা ভাষা স্বগৌরবে, বিজয়ের নিশান উঁড়িয়ে এটাই কামনা।
অনন্য প্রতীক রাউত
শিক্ষার্থী, আইন বিভাগ

প্রাণের চেতনায় উজ্জীবিত হওয়ার মাস

ভাষা শব্দটি আক্ষরিক বিবেচনায় ছোট একটি শব্দ হলেও এর তাৎপর্য অমূল্য আর বাঙালির ক্ষেত্রে সেটি আরও ইতিহাস সমৃদ্ধ; এর পেছনে রয়েছে রক্তের বিনিময়ে ছিনিয়ে আনা মাতৃভাষার সম্মান। মাতৃভাষার প্রতি কতটা আবেগ ও ভালোবাসা থাকলে নিজের শরীরের তাজা রক্ত ঢেলে দিয়ে ছিনিয়ে আনতে পারে তার প্রমাণ ভাষা শহীদরা। তাই ফেব্রুয়ারি এলেই সকলে মেতে ওঠে তাদের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শনে; উজ্জীবিত হয় প্রাণের চেতনায়। ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি শুধু একটি দিন কিংবা আত্মত্যাগের ঘটনা নয় এটি আমাদের বাকস্বাধীনতা লাভের দিন; এই দিনের ত্যাগের মাধ্যমেই আমরা লাভ করি মায়ের ভাষায় মনের ভাব প্রকাশ করার স্বাধীনতা। বাংলা শুধু একটি ভাষা নয়, এর সঙ্গে জড়িত আছে আবেগ, অনুভূতি, সংগ্রাম। তবে এই চেতনা শুধু ভাষার মাসেই ধারণ করলে চলবে না, মনে-প্রাণে লালন পালন করতে হবে। বাংলা ভাষার মর্যাদা রক্ষার্থে সচেষ্ট থাকতে হবে; বাংলা ভাষাকে বিকৃত হওয়া থেকে বাঁচাতে হবে। তাহলেই পরিতৃপ্ত হবে শহীদরা; ব্যর্থ হবে না তাদের আত্মত্যাগ; বাংলা ভাষা পাবে প্রাপ্য সম্মান।
নাজিয়া আফরিন
শিক্ষার্থী, ফার্মেসি বিভাগ

সর্বস্তরে বাংলা ভাষার প্রয়োগ চাই

ভাবের বাহন হচ্ছে ভাষা। আর বাংলা ভাষা আমাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির ধারক। বাংলাদেশ সংবিধানে ‘প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রভাষা বাংলা’ বলা থাকলেও, সর্বস্তরে বাংলার প্রচলন এখনো হয়নি। সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদ এবং বিচারিক কাজে বাংলা ভাষার ব্যবহারের কথা বললেও এখনো ব্যবহার হচ্ছে ইংরেজি ভাষা। উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্রেও ইংরেজিকে প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে।

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বাড়ির নাম, দোকানের নামফলক, ডাক্তারের ব্যবস্থাপনা এবং বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্র ইংরেজিতে লেখা হয়। এভাবে চলতে থাকলে বাংলা ভাষা হারিয়ে ফেলবে তার ইতিহাস ও সংস্কৃতি। মানুষ ভুলে যাবে বাংলা ভাষার সুস্থ চর্চা। এখান থেকে পরিত্রাণের জন্য একুশের চেতনাকে বুকে লালন করতে হবে।

বাড়াতে হবে বাংলা সাহিত্যচর্চা। সরকার, বেসরকারি সংগঠন ও সাধারণ জনগণ প্রত্যেককে নিজেদের জায়গা থেকে এগিয়ে আসতে হবে। পাশাপাশি সুষ্ঠু ভাষানীতি প্রচলন ও বাংলা ভাষা প্রচলন আইন, ১৯৮৭ এর কঠোর বাস্তবায়ন করতে হবে।
সুমনা আক্তার
শিক্ষার্থী, ভূমি ব্যবস্থাপনা ও আইন বিভাগ

যথাযথ মর্যাদা পাক ভাষার মাস

ফেব্রুয়ারি এই তো এলো তাই তো বাংলার প্রতিটা মানুষের হৃদয়ে কম্পনের আবির্ভাব হলো! ফেব্রুয়ারি যে শুধু একটা মাস না, এটা একটা বাংলার আবেগ, বাংলার অনুপ্রেরণা বাংলার শক্তি। ফেব্রুয়ারি এলেই আমাদের স্মৃতিশক্তি প্রবল হয়ে যায় স্মরণ করে সালাম, বরকত, রফিকসহ আরও ভাষা শহীদদের যাদের বুকের তাজা রক্তে রঞ্জিত হয়েছিল ৫২’র রাজপথ। আমাদের চোখে ভেসে ওঠে সেই ৫২’র আন্দোলন ‘রাষ্ট্র ভাষা বাংলা চাই’।
এটা শুধু ভাষার জন্য আন্দোলন ছিল না, ছিল প্রতিটা বাঙালির অস্তিত্বের আন্দোলন! তাই তো একুশ এলেই শরীরে শিহরণ জেগে ওঠে, জেগে ওঠে প্রেরণার! ফেব্রুয়ারি মানে মাথা উঁচু করে অন্যায়ের প্রতি রুখে দাঁড়ানো! ফেব্রুয়ারি মানে আত্মমর্যাদাশীল হওয়া, ফেব্রুয়ারি মানে হাজার তাজা রক্তের তেজ! কিন্তু আজ আমরা ব্যর্থ ‘বাংলা ভাষা’ যার জন্য শহীদ হয়েছে কত তরুণ কত মায়ের বুক খালি হয়েছে কিন্তু সেই বাংলা ভাষাকেই আমরা যথাযথ ব্যবহার করছি না! শুধু ভাষার মাসেই নয় প্রতিটা ক্যালেন্ডারের পাতায় গর্জে উঠুক মহান একুশের চেতনা!
সাদিয়া আফরিন মৌরী
শিক্ষার্থী, আইন বিভাগ

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here