চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) প্রাণিবিদ্যা বিভাগের প্রভাষক পদে ভাইভা দিতে এসে শিবির অভিযোগে মারধরের শিকার হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী মো.এমদাদুল হক। আজ বুধবার (২৭মার্চ) সকাল ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষ সূত্রে জানা যায়, ভাইভা দিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনে ঢুকার সময় মো.এমদাদুল হক নামের ৮-৯ শিক্ষাবর্ষের এক সাবেক শিক্ষার্থীকে বাধা দেয় ছাত্রলীগের একাংশ। পরে সেখান থেকে তাকে কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে নিয়ে মারধর করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহসম্পাদক আসিফ শুভ জানান, ২০১২ সালের ৮ফেব্রুয়ারি সংগঠিত জোড়া খুনের নেতৃত্ব দেয় এ এমদাদুল হক। যাকে ২০১৫ সালে শিবিরের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে হল থেকে বের করে দেয়া হয়।”

তিনি আরো বলেন, “মৌলবাদী জামাত শিবির সংগঠনের কেউ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হবার যোগ্যতা রাখে না। তাদের প্রতিহত করা মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষ শক্তির নৈতিক দায়িত্ব। তাই তাকে বাধা দিয়ে পুলিশের কাছে তুলে দেয়া হয় । “তবে মারধরের বিষয়টি মিথ্যা বলে অস্বীকার করেছেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক আলী আজগর চৌধুরী পুলিশের বরাত দিয়ে বলেন, পুলিশ এমদাদুল হক নামক এক সাবেক শিক্ষার্থীকে কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ থেকে উদ্ধার করে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিক্যালে নিয়ে যায়।পরে সেখান থেকে তাকে হাটহাজারী থানা পুলিশের হেফাজতে পাঠানো হয়।”

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here