মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের আহ্বায়ক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. আ ক ম জামাল উদ্দিনের বিরুদ্ধে বকেয়া পাওনা টাকা না দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। নিজেদের পাওনা টাকা আদায়ের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টরের সহযোগিতা চেয়ে প্রক্টর বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন ডাকসু ক্যাফেটেরিয়ার বাবুর্চি এবং এক ব্যবসায়ী।

অভিযোগ পত্রে ডাকসু ক্যাফেটেরিয়ার বাবুর্চি মোহাম্মদ সেলিম গাজী বলেন, গত ৪অক্টোবর ২০১৯ তারিখে ড.আ ক ম জামাল উদ্দিন একটি অনুষ্ঠান করেন। যেখানে আমি সহ ডাকসুর সতের জন কর্মচারী দুই দিনব্যাপি কাজ করেছিলাম। সবকিছু মিলিয়ে আমরা ৩৯,৮২০ টাকা পাওনাদার। কিন্তু এতদিন পর্যন্ত তিনি আমাদের পাওনা টাকা পরিশোধ করেননি। তার কক্ষে গেলে তিনি গেটম্যান দিয়ে তাড়িয়ে দেন এবং একদিন তিনি তার কক্ষ থেকে আমাদের প্রহার করে বের করে দেন। পরবর্তীতে তাকে শতবার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করন নি।

ভিন্ন আরো একটি অভিযোগ পত্রে গাউছুল আজম সুপার মার্কেটের ডিজাইন ডেভেলপার নামক দোকানের ইমরান হোসেন বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞানের অধ্যাপক ড. আ ক ম জামাল উদ্দিন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ নামক একটি সংগঠনের ব্যানারে আমার অত্র প্রতিষ্ঠান হতে প্যাড, লিফলেট, সদস্য ফর্ম, মানিরিসিট বানিয়ে নিয়েছেন যার বিল বাবদ ১৪,৩৬০ টাকা পাওনা রয়েছে। দীর্ঘদিন যাবৎ দিচ্ছি দিচ্ছি বলে কালক্ষেপন করছেন।

দুটি অভিযোগ পত্রেই অভিযোগকারীরা তাদের পাওনা টাকা আদায়ের জন্য ঢাবি প্রক্টরের সহযোগিতা এবং হস্তক্ষেপ চেয়েছেন।

সামগ্রিক বিষয়ে জানতে চাইলে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের আহবায়ক অধ্যাপক ড.আ ক ম জামাল উদ্দিন বলেন, আমার জানা মতে আমার কাছে কেউ কোনো টাকা-পয়সা পাবে না। তারপরেও কেউ যদি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নিকট এমন অভিযোগ করে, তবে আমি বলব এটা অবশ্যই উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্যই করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড.গোলাম রাব্বানীকে ফোন দিলে তিনি রিসিভ করেননি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here