জীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার রাখালিয়াচালা এলাকায় বুধবার রাতে এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের সহায়তার অভিযোগে গণপিটুনি দিয়ে গৃহশিক্ষক সায়েমকে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী।

সায়েমকে বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ গাজীপুর কোর্ট হাজতে প্রেরণ করেছে। এ ঘটনায় ওই শিক্ষার্থীর মা বাদী হয়ে কালিয়াকৈর থানায় ধর্ষণ মামলা করেছেন। গৃহশিক্ষক সায়েম উপজেলার পূর্বমৌচাক এলাকার অধিবাসী।

পুলিশ, ভিকটিমের পরিবার ও এলাকাবাসী জানায়, গৃহশিক্ষক সায়েম বুধবার সন্ধ্যায় ওই শিক্ষার্থীকে বাসা থেকে একটি মোটরসাইকেল করে মৌচাক এলাকায় ঘুরতে নিয়ে যায়। ওই সময় বিভিন্ন স্থানে ঘোরাফেরা করে মৌচাক এলাকায় কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে সায়েম তাকে পরিচয় করিয়ে দেয়। পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে আবার মোটরসাইকেলে করে সফিপুর পূর্বপাড়া এলাকার একটি দোকানের সামনে নামিয়ে রেখে চলে যায়। সায়েম চলে যাওয়ার কয়েক মিনিট পরে ওই শিক্ষার্থীর সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়া সায়েমের দুই বন্ধু এসে তাকে জানায়, তাকে নিয়ে ঘুরে বেড়ানোর অভিযোগে সায়েমকে বেঁধে রাখা হয়েছে। সেখানে না গেলে তাকে মেরে ফেলা হবে। পরে ওই শিক্ষার্থীকে একটি অটোরিকশায় তুলে মৌচাক বনাঞ্চলে নিয়ে ধর্ষণ করে।

পরে আরেকটি অটোরিকশায় তুলে দেয়। রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওই শিক্ষার্থী বাসায় ফিরে ঘটনাটি মা ও ভাইকে খুলে বলে। এ সময় সায়েম আবার ওই শিক্ষার্থীর বাসায় গিয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে। এ সময় আশপাশের বাড়ির লোকজন এসে সায়েমকে গণপিটুনি পুলিশে সোপর্দ করে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here