ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু), ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন এবং ঢাবির ভিসি ও ঢাবি থেকে দূর্নীতির ভুত তাড়াতে ক্যাম্পাসে ভুত তাড়ানো মিছিল করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

আজ রবিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এই কর্মসূচি পালন করেন। এ সময় উপাচার্যের বাসভবনের সামনে আগুন জ্বালিয়ে অভিনব পন্থায় ‘ভূত তাড়ানো’ মহড়া দেয় শিক্ষার্থীরা। এছাড়া  বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য ও বিজনেস অনুষদের ডিনের পদত্যাগ দাবি করেন।

ভূত তাড়ানো মিছিলে তারা ভূত তাড়ানো নানা স্লোগান ও প্রতিবাদ সম্বলিত বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করে। ‘ভূত তাড়াবো, ভূত তাড়াবো, ঢাবি ভিসির ভূত তাড়াবো, ডিনের ভূত তাড়াবো, জিনাত হুদার ভূত তাড়াবো’ নামে স্লোগান দিতে থাকে।

এসময় তিনটি দাবি জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। এগুলো হলো- যারা অবৈধভাবে ভর্তি হয়েছেন তাদের ছাত্রত্ব ও ডাকসুর পদ বাতিল করে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করে খালি পদগুলোতে দ্রুত উপনির্বাচন দেওয়া। ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম ও বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক ড.মো. আখতারুজ্জামানের পদত্যাগ করা।

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন বলেন, দুর্নীতি এবং জালিয়াতির বিরুদ্ধে আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আজ এখানে জোড়ো হয়েছি। জালিয়াতি যে ভূত প্রশাসনের উপর ভর করেছে সে ভূত তাড়ানোর জন্য আজকে আমরা এ বিক্ষোভ মিছিল করেছি। এর মাধ্যমে আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি এবং বাণিজ্য অনুষদের ডিন সহ রকেয়া হলের প্রভোস্ট জিন্নাত হুদার পদত্যাগ দাবি করছি।

এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী চয়ন বড়ুয়া বলেন, ৩৪ জনকে ঢাবি ভিসি চিরকুটের মাধ্যমে ভর্তি করেছেন। এদের মধ্যে অনেকে ডাকসুতে রয়েছেন। এর মাধ্যমে আমরা বুঝতে পারি ডাকসু নির্বাচনের নীলনকশা অনেক পূর্ব থেকেই নির্ধারিত ছিল। এই ভিসিকে অপসারণ করতে হবে। আমরা স্পষ্ট করে বলতে চাই, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি এবং বিজনেস অনুষদের ডিনকে পদত্যাগ করতে হবে। রোকেয়া হলের দুর্নীতির জন্য জিন্নাত হুদাকে পদত্যাগ করতে হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here