ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধ্যায়নরত মোঃ পিয়াল হাসান নামের একজন শিক্ষার্থীকে বেধরক প্রহার করেছে ঢাকা কলেজের একদল শিক্ষার্থী।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, আজ সোমবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে রাজধানীর নীলক্ষেতে মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। পরে ওই শিক্ষার্থীকে আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়।

আহত শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের মাস্টার্সে অধ্যয়নরত আছেন এবং সে মহসিন হলের একজন আবাসিক শিক্ষার্থী।

সূত্র জানায়, পিয়াল (আহত শিক্ষার্থী) কোচিং করতে নীলক্ষেত যায়। নীলক্ষেত থেকে কোচিং করে ফেরার সময় ঢাকা কলেজের ৭ থেকে ৮ জন শিক্ষার্থী তাকে ঘিরে রড ও লাঠিসোটা দিয়ে মারধর শুরু করে। জানা যায়, শুধুমাত্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী হওয়ার কারণেই ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা তাকে মারধর করে। ঢাকা কলেজের ওইসব শিক্ষার্থীদের সাথে পিয়াল হাসানের কোন কথা কাটাকাটি বা পূর্ব শত্রুতা নাই বলেও জানা যায়।

উল্লেখ্য, ঢাবি শিক্ষার্থীদের কর্তৃক সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের আন্দোলনের প্রেক্ষিতে এই হামলা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে অধিভুক্ত সাত কলেজ বাতিল আন্দোলনের মুখপাত্র শাকিল সাংবাদিকদের জানান, পিয়াল ভাই নীলক্ষেত মোড়ে কোচিং করতে গেলে শুধুমাত্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী হওয়ার কারণে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা তাকে মারধর করে। আমি এখন ইমারজেন্সিতে আছি পিয়াল ভাইয়ের সাথে। ডাক্তার কয়েকটি এক্সরে দিয়েছে। ভাইয়ের নাক দিয়ে রক্ত ঝরছে।

উক্ত হামলার বিষয়ে জানতে চাইলে মহসিন হলের প্রভোস্ট নিজামুল হক ভূঁইয়া সাংবাদিকদের বলেন, আমি এ বিষয়ে কিছু জানি না আমার কাছে এখনো কোন মেসেজ আসেনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here