ঢাকায় ঘরে বসেই মুদি পণ্য কিনতে পারেন যেখান থেকে

সম্প্রতি বিশ্বের প্রায় সব দেশেই ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস। নতুন এ ভাইরাস থেকে সৃষ্ট কোভিড-১৯ রোগের কোনো প্রতিষেধকও এখনও আবিষ্কার হয়নি। করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এবং মৃত্যু মানবজাতিকে ফেলেছে অস্তিত্বের ঝুঁকিতে। এ প্রেক্ষাপটে সারাদেশে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, অফিস, আদালত এবং বিভিন্ন দোকান বন্ধ করে দিয়েছে সরকার।

অফিসে যাওয়ার জন্য আপনাকে বাইরে না যেতে হলেও, বেঁচে থাকার জন্য আপনাকে বিভিন্ন মুদি পণ্য কিনতে বের হতে হয়। লকডাউন থাকা অবস্থায় জমিয়ে রাখা খাবার দিয়ে কিছুদিন হয়ত চলতে পারেন আপনি, কিন্তু মুদি পণ্য শেষ হয়ে গেলে? বর্তমানে কিছু মুদি দোকান খোলা থাকলেও, বাড়ির বাইরে বের হওয়া আপনার জীবনকে ঝুঁকিতে ফেলতে পারে। কিন্তু করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত আপনি না খেয়ে থাকতে পারবেন না।

এখন উপায় কি? চিন্তার কিছু নেই। চাইলে আপনি সহজেই ঘরে বসে অনলাইন শপের মাধ্যমে বিভিন্ন মুদি পণ্য কিনতে পারবেন এবং ঢাকার ভেতর হোম ডেলিভারি পরিষেবা নিতে পারবেন। চলুন দেখে নেয়া যাক এমন কিছু অনলাইন মুদি দোকানের বিস্তারিত।

চালডাল:

চালডাল ডট কম বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় মুদি ভিত্তিক অনলাইন ই-কমার্স ওয়েবসাইট। ২০১৫ সালে জনপ্রিয় ফোর্বস ম্যগাজিনের করা বিশ্বের শীর্ষ ১০টি ই-কমার্স উদ্যোক্তার তালিকাতেও স্থান পেয়েছিল চালডাল। এছাড়া ব্যবহার বান্ধব ওয়েবসাইটের জন্য বিপুল সংখ্যক গ্রাহকের প্রশংসাও পেয়েছে অনলাইনভিত্তিক এ প্রতিষ্ঠানটি। আপনি নিজের ফেসবুক আইড বা মোবাইল নম্বর ব্যবহার করেও চালডাল ডট কমের ওয়েবসাইটে লগইন করতে পারবেন।

চালডালে ফলমূল, শাক-সবজি, প্রাত:রাশের সামগ্রী, পানীয়, মাছ, মাংস, দুগ্ধজাত ও হিমায়িত পণ্যসহ বিভিন্ন ধরণের মুদি পণ্য পাওয়া যায়। এছাড়াও পরিস্কারের সরঞ্জাম, বাড়ির সরঞ্জাম, সৌন্দর্য পণ্য, শিশুদের খাবার, পশু পাখির খাবারসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রীও অর্ডার করতে পারবেন।

চালডাল ডট কম বর্তমানে শুধু ঢাকা শহরের ভেতরেই পরিষেবা প্রদান করছে। এখানে অর্ডার করার প্রক্রিয়াও বেশ সহজ। এছাড়া কেনাকাটা সংক্রান্ত যেকোনো বিষয় জানতে আপনি তাদের ‘লাইভ চ্যাট’ অপশনটিও ব্যবহার করতে পারেন। প্রথম অর্ডারেই ৩% ছাড় পাবেন। আর আপনার চতুর্থ অর্ডার সম্পন্ন হলেই পেয়ে যাবেন ৪% ছাড়ের অফার। চালডাল থেকে কেনাকাটা অব্যাহত থাকলে ৬ষ্ঠ অর্ডারের পর আপনি ৬% ছাড় পেয়ে যাবেন। এছাড়া বিভিন্ন পণ্যে নিয়মিত ছাড় দিয়ে থাকে চালডাল।

চালডাল থেকে ৩০০ টাকার কম যেকোনো অর্ডারের ক্ষেত্রে আপনাকে ৪৯ টাকা ডেলভারি চার্জ পরিশোধ করতে হবে। তবে আপনার মুদি পণ্যের বিল ৩০০ টাকার বেশি হলে ডেলিভারি চার্জ হবে মাত্র ২৯ টাকা।

স্বপ্ন:

স্বপ্ন বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় ও সুপরিচিত সুপারশপ। ঢাকা ও এর আশপাশে তাদের একশোরও বেশি আউটলেট রয়েছে। ২০০৮ সালে স্বপ্নের কার্যক্রম শুরু করে এসিআই লজিস্টিকস। বিভিন্ন অঞ্চলে নতুন নতুন আউটলেট চালু করার মধ্য দিয়ে সেই যাত্রা এখনও অব্যাহত রয়েছে।

অনলাইনে বিক্রয় সেবাও চালু করেছে স্বপ্ন। যার মাধ্যমে আপনি পণ্য অর্ডা্র করে বিনামূল্যে হোম ডেলিভারি পরিষেবা উপভোগ করতে পারেন। করোনাভাইরাসের কারণে বাইরে বের না হতে পারলে বা কোয়ারেন্টাইনে থাকলে, অনলাইনে পণ্য কেনার জন্য স্বপ্ন হতে পারে আপনার অন্যতম পছন্দ।

স্বপ্ন অনলাইন স্টোর থেকে আপনি প্রয়োজন অনুযায়ী শাক-সবজি, প্রাত:রাশের সামগ্রী, পানীয়, মাছ, মাংস, দুগ্ধজাত ও হিমায়িত পণ্যসহ বিভিন্ন ধরণের মুদি পণ্য কিনতে পারবেন। এছাড়া, ব্যাগ, ইলেক্ট্রনিক সামগ্রী, গৃহস্থালির বিভিন্ন জিনিসপত্রও এখান থেকে কেনা যাবে।

বর্তমানে ধানমন্ডি, উত্তরা, বনানী, মিরপুর, মগবাজারসহ ঢাকার বেশ কয়েকটি এলাকায় হোম ডেলিভারি দিচ্ছে স্বপ্ন। বিনামূল্যে হোম ডেলিভারির জন্য প্রতিযোগীতায় অন্য অনলাইন ব্যবসায়ের চেয় অনেকটা এগিয়ে আছে তারা। তবে অনলাইনে পণ্য ক্রয়ের পর হোম ডেলিভারির ক্ষেত্রে কমপক্ষে ৪০০ টাকার অর্ডার দিতে হবে আপনাকে। ক্যাশ অন ডেলিভারি (নগদ প্রদান) ছাড়াও, ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ডের মতো ই-পেমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমেও স্বপ্নের বিল পরিশোধ করা যাবে।

খাস ফুড:

খাস ফুড হলো বাংলাদেশের অন্য আরেকটি জনপ্রিয় অনলাইনভিত্তিক গ্রোসারি শপ, যেখান থেকে আপনি খাঁটি এবং তাজা পণ্য কিনতে পারবেন। স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভাসের প্রচার করাই খাস ফুডের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য। তাদের ওয়েবসাইটটিও অত্যন্ত ব্যবহারবান্ধব। চাল, চিড়া, দুধ, ফল, অরগ্যানিক চা, ফলের জুস, তাজা ঘি, খেজুর, বিভিন্ন ধরণের মশলা, তেল, সেমাই, মধু, জেলিসহ বিভিন্ন ধরণের মুদি সামগ্রী পাওয়া যায় খাস ফুডে।

খাস ফুডে ক্যাশ অন ডেলিভারির পাশাপাশি আপনি ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ড বা মোবাইল ওয়ালেটের মাধ্যমেও টাকা পরিশোধ করতে পারবেন। ঢাকার মধ্যে নগদ প্রদান করে হোম ডেলিভারি পেতে চাইলে আপনাকে ৫০ টাকা চার্জ দিতে হবে। কুরিয়ারের মাধ্যমে ঢাকার বাইরেও বিভিন্ন পণ্য সরবরাহ করে থাকে খাস ফুড। তবে এক্ষেত্রে ডেলিভারি চার্জ ১০০-১৫০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে।

দোকানি:

বাংলাদেশের অন্যান্য জায়ান্ট ই-কমার্স ওয়েবসাইটগুলোর মতো প্রচারণা না থাকলেও, অনলাইন গ্রোসারি শপ দোকানি অনেক গ্রাহকের মন জয় করেছে। যারা বিভিন্ন ধরনের মাছ খেতে পছন্দ করেন তাদের জন্য দোকানি হতে পারে পছন্দের দোকান। তবে শুধুমাত্র ঢাকা শহরের বনানী, বনানী ডিওএইচএস, বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, গুলশান-১, গুলশান-২ এবং নিকেতন এলাকায় হোম ডেলিভারি পরিষেবা প্রদান করে তারা।

দোকানিতে ক্যাশ অন ডেলিভারির পাশাপাশি আপনি ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ড বা মোবাইল ওয়ালেটের মাধ্যমে বিল পরিশোধ করতে পারবেন।

করোনাভাইরাসের (কোভি-১৯) বিস্তার রোধে দেশের নাগরিকদের বাসায় থাকার আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। কোয়ারেন্টাইনের সময়কালে বাড়ির বাইরে যাওয়া বা দোকান খোঁজার ঝামেলা থেকে আপনাকে বাঁচাতে পারে এসব অনলাইন শপ। তবে লকডাউন পরিস্থিতির কারণে হোম ডেলিভারির ক্ষেত্রে বিলম্ব হতে পারে। তাই কোনো অর্ডার দেয়ার আগে ডেলিভারি দিতে কেমন সময় লাগবে সে বিষয়ে জেনে নিতে সংশ্লিষ্ট অনলাইন স্টোর কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করে নেয়াই বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here