ডাকসু নির্বাচনের আচরণবিধি প্রণয়নে ছাত্র সংগঠনগুলোর প্রস্তাবনা জমা দেয়ার শেষ সময় ছিলো গত শনিবার। ছাত্রলীগ ছাড়া অন্য সকল সংগঠন ওইদিন প্রস্তাবনা জমা দিয়েছিলো। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে সেই প্রস্তাবনা জমা দেওয়া হয় সোমবার। এতে তারা ১০টি প্রস্তাবনা দেয়।

প্রস্তাবনাগুলো হলো- বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ, একাডেমিক কার্যক্রম, ক্লাস-পরীক্ষা-সেমিনার-সিম্পোজিয়াম-লাইব্রেরির পরিবেশ ব্যাহত করে নির্বাচনী কার্যক্রম পরিচালনা না করা; শিক্ষার পরিবেশ ও স্বাভাবিক ক্যাম্পাস জীবনের স্বার্থে মাইকের ব্যবহারে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা; দেয়াল লিখনের উপর নিষেধাঙ্গা আরোপ না করা; মেধাভিত্তিক ছাত্ররাজনীতির স্বার্থে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয়ভাবে এবং হলগুলোতে নির্বাচনী বিতর্কসভার আয়োজন করা; বর্তমান ছাত্র নেতা ছাড়া ডাকসু বা হল সংসদের সাবেক নেতৃবৃন্দ বা অন্য কাউকেই রাজনৈতিক প্রচারণায় সম্পৃক্ত হতে না দেয়া; আচরণবিধি সাপেক্ষে সাংবাদিকদের কার্যক্রম পরিচালনা করার পূর্ণ স্বাধীনতা দেয়া; সভা-সমাবেশ করার অনুমতি ৪৮ ঘন্টার পরিবর্তে ২৪ ঘন্টা করা; কোন প্রার্থী নির্বাচনী আচরণবিধির কোন বিধান লঙ্ঘন করলে চীফ রিটার্নিং অফিসার বরাবর অভিযোগের ভিত্তিতে নির্দিষ্ট কর্মঘন্টার মধ্যে কর্তৃপক্ষকে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া।

এছাড়াও নির্বাচনী প্রচারণা চলাকালে ধর্ম-বর্ণ-সম্প্রদায় বা অঞ্চলকে ব্যবহার বা অপব্যবহার করে নির্বাচনী প্রচারণা করতে না দেয়া এবং প্রার্থীদের জন্য সামঞ্জস্যপূর্ণ নির্বাচনী ব্যয়সীমা সুর্নিদিষ্ট করা।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here