ছাত্রলীগে পদের জন্য টাকা লেনদেন, অভিযোগকারী কর্মীকে বহিষ্কার

মাধবপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদের জন্য ২০ লাখ টাকা লেনদেনের অভিযোগ তোলা ছাত্রলীগ কর্মীকে সাময়িক বহিস্কার করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

গতকাল ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে হবিগঞ্জ জেলার, মাধবপুর উপজেলা ছাত্রলীগ কর্মী মাহতাবুর আলম জাপ্পির বিরুদ্ধে এমন সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়।

এর আগে গত ২৭ জুলাই উপজেলা সাধারণ সম্পাদকের পদ পাইয়ে দেয়ার কথা বলে উপজেলা সভাপতি সাইদুর রহমান এবং সাধারণ সম্পাদক মহিবুর রহমান মাহির বিরুদ্ধে ২০ লাখ টাকা লেনদেনের অভিযোগে ন্যায় বিচারের দাবিতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নিকট লিখিত অভিযোগ দেন সদ্য বহিস্কার হওয়া এ ছাত্রলীগ কর্মী।

ঐ অভিযোগপত্রে ছাত্রলীগ কর্মী মাহতাবুর আলম জাপ্পি বলেন, আমাকে মাধবপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ দেয়ার কথা বলে আমার বড় ভাইয়ের সঙ্গে আর্থিক লেনদেনের পাশাপাশি আমার থেকেও বেশি কিছু অর্থ হাতিয়ে নেন উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক। নগদ, ব্যাংক এবং অন্যান্য মাধ্যমে সবমিলিয়ে ২০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন এ দুই প্রভাবশালী ছাত্রলীগ নেতা।

এই লেনদেনের মোবাইল রেকর্ডিং, টাকা লেনদেনের রশিদ, ছাত্রলীগের প্যাডে জেলা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষরিত কমিটির পত্র এবং আর্থিক লেনদেনের অন্যান্য প্রমাণপত্রও আছে বলেও অভিযোগপত্রে উল্লেখ করেন ছাত্রলীগ কর্মী মাহতাবুর আলম জাপ্পি।

তবে সে অভিযোগ জেলা ছাত্রলীগের শীর্ষ দুই নেতা অস্বীকার করলেও যারা পদের জন্য টাকা দিয়েছে বা নিয়েছে উভয়ের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছিলেন কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগ।

এ অভিযোগ যাচাই-বাছাই শেষে গতকাল (৩০ জুলাই) কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে উভয়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলেও অভিযোগকারী ছাত্রলীগ কর্মীকে সাময়িক বহিস্কার এবং হবিগঞ্জ জেলা শাখার সকল সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত করা হয়।

ছাত্রলীগ কর্মী মাহতাবুর আলম জাপ্পিকে সাময়িক বহিস্কারের বিষয় সংগঠনের নীতি-আদর্শ ও শৃঙ্খলা পরিপন্থী কার্যকলাপে জড়িত থাকার কথা বলা হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here