ভোলায় বাবার চাচাতো ভাই তথা ‘চাচাতো চাচার’ দ্বারা তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীধর্ষণে অভিযুক্ত শের আলীকে (৪৫) রাজধানীর পল্লবী থেকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

বৃহস্পতিবার (৩১ জানুয়ারি) দিবাগত রাত ২টার দিকে র‌্যাব-৪ এর একটি দল তাকে গ্রেফতার করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ধর্ষণের দায় স্বীকার করেছেন বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

অভিযোগের বিষয়ে র‌্যাব-৪ সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী ভোলা সদর থানার একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী। গত ২০ জানুয়ারি বাসা হতে স্কুলের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন তিনি। স্কুলে ব্যাগ রেখে কিছু খাবার কেনার জন্য স্কুলের পার্শ্ববর্তী একটি দোকানে গেলে আসামি শের আলী (৪৫) তাকে জুস খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে পোস্ট অফিসের ভেতরে নিয়ে যায়। সেখানে জোরপেূর্বক তাকে ধর্ষণ করেন।

এই ঘটনার পরে শিশুটি তার মাকে ঘটনাটি জানায়। বিষয়টি পারিবারিকভাবে জানাজানির পর ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে ভোলা সদর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। সেই মামলা নং- ৫২।

মামলার পর ভিকটিমকে চিকিৎসার জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

র‌্যাব-৪ এর সিনিয়র এএসপি সাজেদুল ইসলাম সজল জানান, বিষয়টি অতি স্পর্শকাতর হওয়ায় থানা পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব-৪ মামলাটির ছায়া তদন্ত শুরু করে। একপর্যায়ে সোর্স মারফত জানতে পেরে অভিযুক্ত শের আলীকে রাজধানীর পল্লবী হতে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে শের আলী ধর্ষণের শিকার শিশুর বাবার চাচাতো ভাই এবং ওই পোস্ট অফিসের পিয়ন হিসেবে কর্মরত।

বাবার চাচাতো ভাই কর্তৃক শিশুধর্ষণের বিষয়টি এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ঘৃণা ও ক্ষোভের সৃষ্টি করে। ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী পোস্ট অফিস ভাঙচুর করেন। তারা তাকে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলও করেন।

গ্রেফতার আসামির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ প্রক্রিয়াধীন বলে জানান তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here