ভারত নিয়ন্ত্রণাধীন জম্মু কাশ্মীরের জনগণের প্রাণের দাবি ‘আজাদ কাশ্মীর’। সেই আন্দোলনকে সমর্থন দিয়ে এবং সংহতি জানিয়ে মানববন্ধন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীরা।

আজ মঙ্গলবার (৬জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাস বিরোধী রাজু ভাস্কর্যের সামনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে এই মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

এতে ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্র ফেডারেশন, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রী, ইসলাম শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন (ইশা), কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের প্লাটফর্ম সাধারণ শিক্ষার্থী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদসহ বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের কর্মীদের উপস্থিত লক্ষ্য করা যায়।

মানববন্ধনের শ্লোগান ছিল- ইয়ে হক্ব হামারি আজাদী আজাদী, ফ্রিডম ফর কাশ্মীর, কাশ্মীর নীডস উন স্টেপস।

মানববন্ধনে আকরাম নামের দ্বিতীয় বর্ষের একজন শিক্ষার্থী বলেন, কাশ্মীর ১৯৪৭ সালে ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা অনুযায়ী কিছু শর্তের ভিত্তিতে ভারতীয় সাম্রাজ্যের অন্তর্ভুক্ত হয়েছির। কিন্তু ভারতীয় বাহিনী সেসব শর্ত ভঙ্গ করে তাদের উপর নির্যাতন-নিপীড়ন চালাচ্ছে। যদি তাদের উপর অব্যহত রাখা হয়। তাহলে সারা পৃথিবীর সাম্যবাদী মানুষ এর দাঁত ভাঙা জবাব দেবে।

তিনি আরো বলেন, আমরা চাই কাশ্মীরী জনগণ তাদের অধিকার ভোগ করুক। তাদের দাবি পূরণ হোক।

মানববন্ধনে উপস্থিত আরেক শিক্ষার্থী বলেন, আজাদী ও মানবিক দাবিতে আমরা সংহতি জানাচ্ছি। ৭১ এর মুক্তিযোদ্ধা ও যেসব সেনারা যুদ্ধের মাধ্যমে আমাদের স্বাধীনতা এনে দিয়েছিলেন তাদের যেমন সম্মানের চোখে দেখি, কাশ্মীরের সংগ্রামী জনতাকে যারা ভারতীয় আগ্রাসন থেকে মুক্তি চাচ্ছে। তাদের একই চোখে দেখতে চাই।

তিনি আরো বলেন, ভারতীয় গণমাধ্যমে যারা কাশ্মীরীদেরকে জঙ্গি বলে তাদের চিহ্নিত করা হোক। জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ সকর আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক সংগঠন কাশ্মীরী জনগণের দাবি পূরণে এগিয়ে আসুক।

এসময় শিক্ষার্থীরা কাশ্মীর সমস্যার সমাধানে জাতিসংঘসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থাকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, গতকাল রাতে কাশ্মীরের সাধারণ মানুষের আন্দোলনের সাথে সংহতি জানিয়ে একটি সংহতি মিছিল বের করেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এতে বিভিন্ন বাম সংগঠনগুলোর কেন্দ্রীয় ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here