করোনা: কোয়ারেন্টিনে এবার রোহিঙ্গা পরিবার

আজ দুপুরে টেকনাফের লেদা রোহিঙ্গা শিবির হতে দুই শিশুসহ চারজনের একটি পরিবারকে কোয়াররেন্টিনে নেওয়া হয়েছে। তারা এখন লেদা জাতিসংঘের অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) হাসপাতালে রয়েছে।

পরিবারটির সদস্যরা হলেন, মো. ছাদেক (২৫), সাদেকের স্ত্রী হোসনে আরা (২৩), ছেলে পারভেজ (৩) ও মেয়ে সাজেদা (১০ মাস)।

করোনা প্রতিরোধে ভারত হতে অবৈধভাবে আসা এই রোহিঙ্গা পরিবারকে কোয়ারেন্টিনে নেওয়া হয়েছে।

স্থানীয় রোহিঙ্গা নেতারা জানিয়েছেন, সোমবার ভোর ৫টার দিকে খুলনা হয়ে সড়কপথে রোহিঙ্গা ক্যাম্প-২৪ এর ‘ই’ ব্লকে মোস্তাক আহম্মেদ নামক এক ব্যক্তির বাসায় আসে ছাদেকের পরিবারটি। বেলা ১২টার দিকে তাদের আসার খবর জানাজানি হলে পরিবারটিকে ক্যাম্প ইনচার্জ (সিআইসি) অফিসে নিয়ে আসা হয়।

ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের প্রতিনিধি, টেকনাফের নয়াপাড়া ও লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ইনচার্জ (সিআইসি) আব্দুল হান্নান বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গত রবিবার রাতে ভারতের হায়দারাবাদ থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে পরিবারটি। ইতোমধ্যে তাদের ইউএনএইচসিআর ও আইওএমের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

টেকনাফের লেদা রোহিঙ্গা শিবিরের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলমও ভারত থেকে আসা পরিবারটির কোয়ারেন্টিনে রাখার খবর নিশ্চিত করেন।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, রোহিঙ্গাদের অবৈধ যাতায়াত টেকনাফকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলছে। তিনি রোহিঙ্গা পরিবারটিকে কোয়ারেন্টিনে নেওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

তিনি আরও বলেন, এসময় বিদেশ ফেরতদের তালিকায় অনেককে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। ধারণা করা হচ্ছে এরা রোহিঙ্গা। তাই উদ্বেগ বাড়ছে এখানে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here