করোনা আক্রান্তদের সাহায্যে বেতনের অর্ধেক দিলেন টাইগাররা

প্রাণঘাতী করোনাভাইসের প্রাদুর্ভাবে দেশব্যাপী নেমে এসেছে স্থবিরতা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ হয়ে গেছে, বন্ধ হয়েছে সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসহ বিপনন কেন্দ্রগুলোও। জরুরী প্রয়োজনের অংশ হিসেবে কেবল খোলা রাখা হয়েছে মুদি দোকান ও ফার্মেসি। উদ্ভুত পরিস্তিতিতে করোনা মোকাবিলায় নিজেদের এক মাসের বেতনের অর্ধেক দান করে দিচ্ছেন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল বলেন, ‘এটা জাতীয় দুর্যোগ। এ দুর্যোগ মোকাবিলা সরকারের কিংবা কারে একার দায়িত্ব নয়। এ দায়িত্ব আমাদের সবার। সেই চিন্তা থেকে আমরা ক্রিকেটাররা একটি পদক্ষেপ নিয়েছি। অধিনায়ক হিসেবে আমি ভীষণ গর্বিত যে এ উদ্যোগে দলের সবাই সমান আবেগ নিয়ে অংশগ্রহণ করেছে।’

তামিম আরো জানান, ‘গতকাল মাশরাফি ভাইয়ের সংগে আলাপ হচ্ছিল এটা নিয়ে। এরপর সবার সংগে কথা হয়। সবাই এক বাক্যে রাজি হয়েছে।’

বিসিবির চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটাররা তাদের এক মাসের বেতনের অর্ধেক তহবিলে দান করেছেন। চুক্তির বাইরে থাকা ক্রিকেটাররা, যারা সবশেষ সিরিজে অংশগ্রহন করেছেন, তারাও সমান অবদান রেখেছেন। এটাই বেশি আন্দোলিত করেছে তামিমকে,’ যারা চুক্তিতে নেই তারাও সিরিজের দলে থাকলে ওই মাসের বেতন পায়। কিন্তু আমাদের মতো সারা বছর বেতন পায় না। সেই তারাও সমানভাবে অংশগ্রহণ করেছে।’ তাতে সবমিলিয়ে অনুদানের অংকটা ২৫ লাখ টাকা ছাড়িয়ে গেছে।

তবে কাউকে কম বা বেশি কৃতিত্ব দিতে চান না তামিম,’এখানে সবার সমান অবদান। একজন ক্রিকেটার হিসেবে একটা বড় ম্যাচ জয়ের সমান আনন্দ ও গর্ব হচ্ছে। ‘ সেই সঙ্গে তিনি সবার কাছে অনুরোধ রেখেছেন,’আমরা যেটুকু অবদান রেখেছি, প্রয়োজনের তুলনায় তা খুবই সামান্য। তবে দেশের যাদের সামর্থ আছে তারা যদি একটু এগিয়ে আসেন, তাহলে আমরা ইনশাল্লাহ সংকট উত্তরণের পথ খুঁজে পাব। অবদান ১০ টাকা হোক কিংবা ১০ কোটি, প্লিজ সবাই এগিয়ে আসুন।’

বিশ্বজুড়ে ১৮ হাজার ৮৯১ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে করোনাভাইরাস। এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪ লাখ ২২ হাজার ৬১৩। এছাড়া চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ১ লাখ ৮ হাজার ৮৭৯ জন।

এখন পর্যন্ত ১৯৭টি দেশ ও অঞ্চলে করোনার প্রকোপ ছড়িয়ে পড়েছে। করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের সংখ্যা চীনে। দেশটিতে নতুন করে আরও ৪৭ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮১ হাজার ২১৮। অপরদিকে করোনায় আকান্ত হয়ে মারা গেছে ৩ হাজার ২৮১ জন।

সারাবিশ্বের ১৯৬টিরও বেশি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। বাংলাদেশেও এর সংক্রমণ হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন, তার মধ্যে মারা গেছেন ৩ জন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here