এবার নুর-রাশেদ দের বিরুদ্ধে সুহেলের অভিযোগের পাহাড়

ডাকসুর সদ্য সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর , রাশেদ সহ ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতাদের বিরুদ্ধে পুণরায় অভিযোগ তুলেছেন। গত মাসে সংগঠনের ২১ টি ইউনিট বিদ্রোহ করে এবং পরবর্তীতে বিদ্রোহে নেতৃত্ব প্রদানকারীদের কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদ দিয়ে বিদ্রোহ দমন করা হয়। স্টুডেন্ট জার্নালের কাছে এমন অভিযোগ তুলে ধরেন সংগঠনটির সাবেক যুগ্ম আহবায়ক এপিএম সুহেল।

তিনি জানান , যুব কমিটি স্থগিত করে পুনরায় সদস্য সচিব পদে ভোট গ্রহণ এবং ভোটার তালিকা হালনাগাদ, স্থায়ী কমিটি গঠন, গঠনতন্ত্র তৈরী, হিংস্র-উশৃংখল নেতাদের বহিষ্কার, গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের ভোটাধিকার, আর্থিক স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা সহ বিভিন্ন বিষয়ে ১০ দফা দাবিতে ছাত্র অধিকার পরিষদের ২১ টি ইউনিটের দায়িত্বশীল নেতারা আহ্বায়ক বরাবর চিঠি দেয়। এবং ৪৮ ঘন্টার মধ্যে দাবি না মানলে সকল ধরণের কার্যক্রম স্থগিত করা হবে অনির্দিষ্টকালের জন্য, প্রয়োজনে স্বেচ্ছাচারিতা ও স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করে ‘বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ’ এর বিরুদ্ধাচারণ করা ও ঢাবি কেন্দ্রিক সিন্ডিকেট করার সাথে জড়িত সকলকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করার আল্টিমেটাম দেয় তারা।

পরবর্তীতে বিদ্রোহ প্রশমন করতে গত ১১ ই সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) মিটিং হয়। সেখানে বিদ্রোহকারীদের সাথে নুরের বাকবিতন্ডা হয়। পরবর্তীতে বিদ্রোহে নেতৃত্বস্থানীয় ব্যাক্তিদের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম আহবায়ক এবং বিভাগীয় কমিটি গুলোতে পদ দিয়ে সংগঠনে শৃঙ্খলা আনা হয়।

সুহেল আরো জানায়, নুর কাউকে আর্থিক হিসাব দিত না। সে বিভিন্ন জায়গা থেকে টাকা আনত। জিগ্যেস করলে, সে গোয়েন্দা সংস্থার নজরদারি এড়ানোর অযুহাতে বিষয় গুলো গোপন রাখত ।

এব্যাপারে সংগঠনটির বর্তমান আহবায়ক মুহাম্মদ রাশেদ বলেন, তার এসব অভিযোগ মিথ্যা ও বানোয়াট । সে সংগঠন থেকে বহিস্কৃত তাই এসব মিথ্যাচার করছে৷ এবিষয়ে আমাদের কথা বলার আগ্রহ নাই।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here