নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়া বাজারে প্রকাশ্যে দিনে-দুপুরে মানুষের সামনে এক মহিলার গলা থেকে স্বর্ণের একটি চেইন ছিনতাই করে। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে পাঁচ নারীকে হাতেনাতে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে জনতা।

পরে পুলিশ আটক করে তাদেরকে বনপাড়া তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে যায়।আটকরা হলেন-ঢাকার সাভার উপজেলার পোড়াবাড়ি এলাকার জাহিদুল ইসলামের মেয়ে ফাতেমা খাতুন (২০), একই এলাকার সুজা মিয়ার স্ত্রী তাসলিমা খাতুন (৩২), পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার মুলাডুলি গ্রামের হাসান আলীর স্ত্রী রুমা খাতুন (২২), মৃত হালিম উদ্দিনের মেয়ে আয়েশা খাতুন (৪৬) ও রয়েল আলীর মেয়ে আঁখি খাতুন (২২)।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, আটকদের মধ্যে আয়েশা খাতুন ছিনতাইকৃত স্বর্ণের চেইনটি মুখে দিয়ে গিলে ফেলেন। আটকের পর পুলিশ চেইনটি উদ্ধারের জন্য বনপাড়া পাটোয়ারী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। কিন্তু সেখানে বিদ্যুৎ না থাকায় আলট্রাসোনোগ্রাফি করা সম্ভব হয়নি। তবে চিকিৎসকের সহায়তায় উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। ছিনতাই হওয়া স্বর্ণের চেইনটির মালিক উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের শাহাদৎ হোসেনের স্ত্রী হাসিনা বেগম ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা আরও জানান, শুক্রবার দুপুর বারোটার দিকে হাসিনা বেগম দুই মেয়েসহ জোয়াড়ী গ্রামে অপর মেয়ে জামাইয়ের বাড়িতে যাবার জন্য বনপাড়া বাজারের সিএনজি স্ট্যান্ডে দাঁড়িয়ে ছিলেন। এ সময় অভিযুক্তরা সেখানে কৌশলে হাসিনা বেগমকে ঘিরে ফেলে তার গলায় থাকা এক ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইনটি ছিঁড়ে নেয়। তাৎক্ষণিক  তারা সেখান থেকে পালানোর চেষ্টা করলে তার দুই মেয়ে বুঝতে পেরে চেইনটিসহ ছিনতাইকারী আয়েশাকে হাতে-নাতে ধরে ফেলে।

কিন্তু ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে আয়শা চেইনটি মুখে দিয়ে গিলে ফেলে। পরে দুই মেয়ের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে তাদেরকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করে।

বনপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর নজমুল হক বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে  বলেন, আয়েশাসহ আটকরা চেইনটি ছিনতাই করে মুখে দিয়ে গিলে ফেলার কথা স্বীকার করেছে। তাদের বিরুদ্ধে বড়াইগ্রাম থানায় হাসিনার মেয়ের জামাই দুলাল মৃধা বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here