আসাম রাজ্যে সরকারি সব মাদ্রাসা ও সংস্কৃত টোল বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্যের বিজেপি সরকার। শুধু তাই নয়, আগামী ৬ মাসে মধ্যে এসব মাদ্রাসাকে সাধারণ স্কুলে পরিণত করা হবে বলেও নিয়েছে বিজেপে।

ভারতের বিভিন্ন গণমধ্যম থেকে জানা গেছে, ২০১৭ সালে মাদ্রাসা ও সংস্কৃত টোল বোর্ড তুলে দিয়ে বোর্ডের অধীন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের অধিভুক্ত করেছিলো আসামের বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার। এখন তারা সেগুলোকে পুরোপুরি বন্ধ করে দেয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে।

আসামের শিক্ষামন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা বলেছেন, শিশুদের ধর্ম, ধর্মগ্রন্থ ও আরবি ভাষা শিক্ষা দেয়া ধর্মনিরপেক্ষ সরকারের কাজ নয়।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, আসামে প্রায় ১২০০ মাদ্রাসা ও ২০০ সংস্কৃত টোল আছে, কিন্তু এগুলো পরিচালনা করার মতো স্বতন্ত্র কোনো বোর্ড নেই। এই প্রতিষ্ঠানগুলোর লোকজন ম্যাট্রিকুলেশন বা উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলের সমমানের সার্টিফিকেট পাওয়ায় অনেক সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে।

আর এজন্যই রাজ্য সরকার সব মাদ্রাসা ও সংস্কৃত টোলকে নিয়মিত স্কুলে পরিণত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানান তিনি।

সরকারি মাদ্রাসা ছাড়াও আসামে রয়েছে প্রায় দুই হাজার বেসরকারি মাদ্রাসা। সেগুলোও নিয়ন্ত্রণে আনতে কঠোর বিধিবিধান করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা।

যেহেতু রাজ্য সরকার ধর্মনিরপেক্ষ প্রতিষ্ঠান, ফলে তারা ধর্মীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালাতে পারে না। বেসরকারি মাদ্রাসা ও সংস্কৃত টোল চলতে পারে, তবে নিয়মিতভাবে সেখানে শিক্ষা চলছে কিনা, তা নজরদারি করতে শিগগিরই নতুন আইন আনবে বিজেপি সরকার।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here