আদর্শ গৃহিণীর মতো টানা সংসার করছেন ঘরবন্দী তিশা

কাজের চাপে ঘরে থাকা হয়নি অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশার। দেশ-বিদেশের শুটিং সেট আর চলচ্চিত্র উৎসবে দিনের পর দিন কেটে গেছে তাঁর। এত দিন এতটা নিবিড়ভাবে সংসার করার সুযোগ আসেনি তিশা-ফারুকী দম্পতির, যতটা সুযোগ তাঁরা পেয়েছেন এই লকডাউনে। সাধারণ ছুটিতে গৃহবন্দী হওয়ার পর গত ১০০ দিন যেন নিবিড়ভাবে সংসার করলেন তিশা।

লকডাউনে ঘরবন্দী হওয়ার পর পরিবারের সদস্য ও সংসারের প্রতি অনেক মনোযোগ দিতে পেরেছেন তিশা। আগে শুটিংয়ের জন্য সকালে বের হওয়া ও রাতে ফিরে ঘুমাতে যাওয়ার রুটিনে এসেছে বিস্তর পরিবর্তন। এখন বাড়িতে পরিপূর্ণ সময় কাটাচ্ছেন তাঁরা। তিশা বলেন, ‘মায়ের সঙ্গে সময় কাটাইনি বহু বছর। এখন তাঁর সঙ্গে সময় কাটাচ্ছি। স্বাভাবিক সময়ে সকালে মাকে চুমু দিয়ে ঘর থেকে বের হয়ে যেতাম। রাতে ফিরে এসে দেখতাম মা ঘুমিয়ে পড়েছেন। এখন দিনের প্রায় পুরোটা সময় আমি মাকে দিতে পারছি। যে আত্মীয়রা দেশের বাইরে থাকেন, তাঁদের সঙ্গে আগে খুব কম যোগাযোগ হতো। এখন তাঁদের সঙ্গে নিয়মিত কথা হয়।’

লকডাউনে তিশাদের ঘরবন্দী হওয়ার শততম দিন আজ শুক্রবার। এ নিয়ে মোটেও হতাশ নন তিনি। তিশা জানান, এখনো হাল ছাড়েননি। ছবি আঁকা, নানা রকম জিনিস বানানো, পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে গল্প করা, পড়া, সিনেমা দেখার মতো আনন্দময় কাজগুলো করে চমৎকার কেটে যাচ্ছে তাঁর দিন। তিনি বলেন, ‘আমি নিজের মতো করে বাগান করছি, সরয়ারকে নতুন গল্পে সাহায্য করছি। এত দিন আসলে এত চাপ ছিল যে নিজেকেও সময় দেওয়া হয়নি। এই প্রথম মনে হচ্ছে, আমি একজন আদর্শ গৃহিণীর মতো টানা সংসার করছি। এই জীবনটাও আমি ভীষণ উপভোগ করছি।’

কোন জীবন বেশি উপভোগ্য? জানতে চাইলে তিশা বলেন, ‘আমি দুটি জীবনই দারুণ উপভোগ করছি। শুটিংয়ের সময়টা এক রকম আর এই বাড়িতে থাকা সময়টা আরেক রকম। শিগগির হয়তো শুটিংয়ে ফিরব। শিল্পী হিসেবে নিজের দায়িত্ববোধ থেকে বুঝতে পারছি যে আমাকে কাজ শুরু করতে হবে। আজীবন আমি ঘরে বসে থাকতে পারব না। এ জন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিরাপদে শুটিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে।’

আসছে জুলাই মাসে অভিনেত্রী তিশা ও চলচ্চিত্রকার মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর বিয়ের এক দশক পূর্ণ হবে। বিয়ের দশকপূর্তি বিশেষভাবে উদ্‌যাপন করবেন কি না, তা জানতে চাইলে তিশা বলেন, ‘এখনো সে রকম কোনো পরিকল্পনা করা হয়নি। আমাদের প্রতিটি দিনই আনন্দে কাটছে।’

টেলিভিশন নাটক ছাড়াও চলচ্চিত্রকার মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালিত ‘ডুব’ ছবিতে শেষ দেখা গিয়েছিল তিশাকে। সেখানে তাঁর সহশিল্পী ছিলেন সদ্য প্রয়াত বলিউড তারকা ইরফান খান। এ ছাড়া বাংলাদেশে মুক্তির অপেক্ষায় আছে এই পরিচালকের ‘শনিবার বিকেল’ ছবিটি। ইতিমধ্যে তিনি শেষ করেছেন নতুন চলচ্চিত্র ‘নো ল্যান্ডস ম্যান’। এ ছবিতে যুক্ত হয়েছেন অস্কারজয়ী ভারতীয় সংগীত পরিচালক, সুরকার এ আর রহমান, বলিউড তারকা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকিসহ আরও অনেকে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here